মেনু নির্বাচন করুন

তেপান্তর

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান আলহাজ ওমর ফারুক চৌধুরী বলেছেন বিগত জোট সরকারের আমলে ৫টা হোন্ডা ২০টা গুন্ডা দিয়ে নির্বাচন করার নীতি প্রচলন ছিল। এখন তা আর নেই।

শনিবার ২৩ এপ্রিল  জামালপুর যাওয়ার পথে ভালুকায় যুবলীগ কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেকে এম পি চয়ন ইসলামের তেপান্তর প্রিন্সেস হোটেল এন্ড রিসোর্টে ভালুকা উপজেলা  যুবলীগ আয়োজিত পথ সভায় প্রধান অতিথি  হিসেবে বক্তব্য রাখেন ।

ওমর ফারুক বলেন, শফিক রেহমান চক্রান্তকারী, এই সাংবাদিক নামধারী ব্যাক্তি সজিব ওয়াজেদ জয়কে হত্যার পরিকল্পনা করেছিল । বিএনপি এই চক্রান্তকারির পক্ষ নিয়ে প্রমান করেছে বিএনপিও এই ষড়যন্ত্রে জড়িত

তিনি আরও বলেন ,বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার জনগনের ভোট এবং ভাতের অধিকার নিশ্চিত করেছেন। খালেদা জিয়ার শাসনামলে সোয়া কোটি ভূয়া ভোটার হয়েছিল কিন্তÍ এখন আর তা হয় না। তিনি বলেন খালেদা জিয়া শুধু মিথ্যাচার বলে রাজনীতি করেন। তার রাজনীতিই হচ্ছে মিথ্যবলা। তিনি প্রেস ব্রিফিং করে সংবাদিক ভাইদের কাছে কাগজ ধরিয়ে দেন সরাসরি কোন বক্তব্য দেন না। আর সাংবাদিক ভাইয়েরা তা প্রচার করেন। অথচ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজে উপস্থিত থেকে সাংবাদিক ভাইদের প্রশ্নের জবাব দেন। পদ্মা সেতু নির্মানে দূনীতির কথা উঠলেও এখন তারাই বলেছেন এটা ছিল মিথ্যা। শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতায় থাকলে দেশে মঙ্গা থাকে না। এখন বিদেশ থেকে আমাদের চাউল আমদানী করতে হয় না। অমরা এখন খাদ্যে সয়ন সম্পন্ন, আমাদের চাউল বিদেশে রপ্তানি হচ্ছে। ইউরোপ সহ বিভিন্ন দেশে আমাদের দেশের সবজি রপ্তানি হচ্ছে। দেশের অর্থায়নেই পদ্মা সেতু নির্মিত হচ্ছে। বিএনপির নেতা কর্মীরা অপপ্রচার করত, আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসলে মসজিদে আযানের পরিবর্তে উলুধর্বনি দেয়া হবে। আওয়ামীলীগ ৭বছর হলো ক্ষমতায় আপনারা বলেন মসজিদে কি আযান হয় না উলুধর্বনি হয় ? এসব অপপ্রচার বন্ধ করতে নেতা কর্মীদের সজাগ থাকতে হবে।

তিনি আরো বলেন এখন যৌবনযার যুদ্ধে যাওয়ার সময়তার। এ যুদ্ধ হচ্ছে বাবা- মা সেবা, স্কুল শিক্ষকদের সেবা, সমাজ সেবা এবং নেতৃত্ব বাছায়ে যুদ্ধ। গাছের পাতা-লাতাও আওয়ামীলীগ করবে তার দরকার নেই। দখলবাজরা আওয়ামীলীগ করবে এমন দখলবাজদের দরকার নেই। আমার স্বচ্ছ ও গ্রহনযোগ্য লোক দরকার। যারা দেশ গড়তে এগিয়ে আসবে। দেশে এখন স্বস্থির অবস্থা বিরাজ করছে এবং আগামী ১ বছর পর দেশ কতদুর এগিয়ে যাবে তা আপনারা দেখতে পারবেন।

ভালুকা উপজেলা যুবলীগের নব নির্বাচিত সাভাপতি রিপনের সভাপতিত্বে, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ছিলেন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ,স্থানীয় এম পি ডাঃ এম আমানুল্লাহ,  সিরাজগঞ্জ ৬ (শাহজাদপুর) আসনের সাবেক সাংসদ ও যুবলীগ কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়ামের অন্যতম সদস্য চয়ন ইসলাম, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আওলাদ হোসেন রুহুল, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা ধনু ও ভালুকা যুবলীগের সম্পাদক পারুল ।  পথ সভায় যুবলীগ কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়ামের সদস্, কেন্দ্রীয় নেতা ও ঢাকা মহানগরের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন ।


Share with :

Facebook Twitter